কলিস কিং

কলিস কিং
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম কলিস লিওলিন কিং
জন্ম (1951-06-11) ১১ জুন ১৯৫১ (বয়স ৭০)
ক্রাইস্ট চার্চ, বার্বাডোস
ব্যাটিংয়ের ধরন ডানহাতি
বোলিংয়ের ধরন ডানহাতি মিডিয়াম
ভূমিকা অল-রাউন্ডার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক
(ক্যাপ ১৫৮)
৮ জুলাই ১৯৭৬ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট ৭ আগস্ট ১৯৮০ বনাম ইংল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক
(ক্যাপ ১৯)
২৬ আগস্ট ১৯৭৬ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ ওডিআই ৩০ মে ১৯৮০ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছর দল
১৯৭৩-১৯৮২ বার্বাডোস
১৯৭৭ গ্ল্যামারগ্যান
১৯৮৩-১৯৮৫ ওরচেস্টারশায়ার
১৯৮৪-১৯৯০ নাটাল
২০০৩-বর্তমান ডানিংটন সিসি
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই এফসি এলএ
ম্যাচ সংখ্যা ১৮ ১২৫ ১৩৬
রানের সংখ্যা ৪১৮ ২৮০ ৬৭৭০ ২৭৩৮
ব্যাটিং গড় ৩২.১৫ ২৩.৩৩ ৩৮.২৪ ২৫.৮৩
১০০/৫০ ১/২ –/১ ১৪/৩৪ ২/১৭
সর্বোচ্চ রান ১০০* ৮৬ ১৬৩ ১২৭
বল করেছে ৫৮২ ৭৪৪ ৯২৭৯ ৫৫৫৬
উইকেট ১১ ১২৮ ১০৮
বোলিং গড় ৯৪.০০ ৪৮.০৯ ৩৪.২১ ৩৪.৪৯
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট - -
সেরা বোলিং ১/৩০ ৪/২৩ ৫/৯১ ৪/২৩
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৫/– ৬/– ৯৮/– ৪১/–
উৎস: ক্রিকইনফো, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৬

কলিস লিওলিন কিং (ইংরেজি: Collis King; জন্ম: ১১ জুন, ১৯৫১) বার্বাডোসের ক্রাইস্ট চার্চে জন্মগ্রহণকারী ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক ক্রিকেটার। খেলায় তিনি ডানহাতে ব্যাটিং ও ডানহাতে মিডিয়াম বোলিং করতেন। দলে তিনি মূলতঃ অল-রাউন্ডারের ভূমিকা পালন করতেন। তবে বলের চেয়ে ব্যাটিংয়েই তিনি টেস্ট ক্রিকেটে অধিক সফলকাম হয়েছেন কলিস কিং । তিনি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের পক্ষ হয়ে নয়টি টেস্ট ও ১৮টি একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অংশগ্রহণ করেন। টেস্টে একটি শতক ও দুইটি অর্ধ-শতক লাভ করলেও তিনটি ভিন্ন ইনিংসে তিনটিমাত্র উইকেট লাভ করতে সক্ষম হয়েছেন।

১৯৮২-৮৩ ও ১৯৮৩-৮৪ মৌসুমে দক্ষিণ আফ্রিকায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিদ্রোহী দলের সফরে কিং অংশগ্রহণ করেছিলেন। প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে নিজ দেশ বার্বাডোসের হয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ঘরোয়া ক্রিকেট প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। এছাড়াও, ইংরেজ কাউন্টি ক্রিকেটে গ্ল্যামারগান এবং ওরচেস্টারশায়ার দলের সাথে জড়িত ছিলেন। দক্ষিণ আফ্রিকায় নাটালের হয়েও খেলেছেন কিং। তন্মধ্যে, ১৯৮৩ সালে ওরচেস্টারশায়ার কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাবের অভিষেক খেলায় পঞ্চাশ বছরেরও অধিক সময়ের মধ্যে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে কাউন্টি ক্রিকেটে সেঞ্চুরি করেন।[১]

লর্ডসে দ্বিতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত ১৯৭৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপ প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত খেলায় স্বাগতিক ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৯৯ রানে ৪ উইকেটের পতনের পর তিনি তার একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট জীবনের সর্বোচ্চ রান সংগ্রহ করেন। তিনি ও ভিভ রিচার্ডস ৫ম উইকেট জুটিতে ১৩৯ রান তোলেন।[২] এতে কিং ৮৬ রান করেন ৬৬ বল মোকাবেলা করে।[৩] এছাড়াও ফিল্ডিংয়ে নেমে একটি ক্যাচ ধরেন ও ৩ ওভারে ১৩ রান প্রদান করেন। ঐ খেলায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৯২ রানে জয়ী হয় ও উপর্যুপরি দ্বিতীয়বারের মতো শিরোপা লাভ করে।[৪]

  1. "Hundred in First Match for Worcestershire"CricketArchive। সংগ্রহের তারিখ ২২ সেপ্টেম্বর ২০০৭ 
  2. "Prudential World Cup, 1979 – Fall of wickets and partnerships"ESPNcricinfoESPN। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারি ২০১২  অজানা প্যারামিটার |1= উপেক্ষা করা হয়েছে (সাহায্য)
  3. England v West Indies ১৯৭৯ ক্রিকেট বিশ্বকাপ ফাইনাল
  4. Preston, Norman। "Prudential World Cup final, 1979"Wisden Cricketers' AlmanackESPN। সংগ্রহের তারিখ ৯ জানুয়ারি ২০১২ 
পূর্বসূরী
সরফরাজ নওয়াজ
নেলসন ক্রিকেট ক্লাব
পেশাদার

১৯৭৪-১৯৭৫
উত্তরসূরী
হ্যারল্ড গিবসন

Copyright